শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১

আমি একদিনও না দেখিলাম তারে - " আমি " ও " তারে " বলতে কাদের বোঝানো হয়েছে ? বক্তা তার কাঙ্ক্ষিত জনকে দেখতে পাননি কেন ?

  আমি একদিনও না দেখিলাম তারে  - " আমি " ও " তারে " বলতে কাদের বোঝানো হয়েছে ? বক্তা তার কাঙ্ক্ষিত জনকে দেখতে পাননি কেন ?


প্রশ্ন :- " আমি একদিনও না দেখিলাম তারে " - " আমি " ও " তারে " বলতে কাদের বোঝানো হয়েছে ? বক্তা তার কাঙ্ক্ষিত জনকে দেখতে পাননি কেন ?





উত্তর:- " আমি " বলতে বাউল সম্রাট , বাউল শিরোমণি লালন ফকিরকে এবং " তারে " বলতে লালনের কাঙ্ক্ষিত আরশিনগরের পড়শী নাম্নী সর্বশক্তিমান , পরমপুরুষ ঈশ্বর কে বোঝানো হয়েছে । এই পড়শী আসলে নিরাকার পরমব্রক্ষ , লালনের মনের মানুষ ।

[   ] চরম দার্শনিকতা বোধে লালন তার মনের মানুষ , অচিন পাখির সন্ধান করেছেন । শাস্ত্রনুযায়ী " আত্মানাং  বিদ্ধি " অর্থাৎ নিজেকে জান । নিজেকে চিনতে বা জানতে পারলেই পরমব্রক্ষ ঈশ্বর কে জানতে পারা যাবে । আরশিনগরের পড়শী কে জানতে হলে প্রথমে নিজেকে জানতে হবে ও চিনতে হবে । লালন ফকির আরশিনগরের পড়শীর সান্নিধ্য লাভ করে মৃত্যু ভয় দূরীভূত করতে চান । সেই মনের মানুষ রুপাতিত , নিরবয়ব , নিরাকার পরমব্রক্ষকে কোনোভাবেই পাওয়া সম্ভব হয় না কারণ দার্শনিক মত ও উপলব্ধিতে জানা গেছে শরীর নিহিত প্রাণশক্তি বা জাগতিশক্তি বস্তুতে প্রাকৃতিক নিয়মনীতি সম্পর্কিত । তাই তাকে বোধ বুদ্ধি দিয়ে বিচার করার পাশাপাশি উপলব্ধি করতে হয় । লালন পঞ্চ ভূতে তার অবস্থান উপলব্ধি করেছেন । কোনোভাবেই পড়শীকে তিনি প্রত্যক্ষ করতে পারবেন না বলে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন ।



কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

/>