রবিবার, ১ ডিসেম্বর, ২০১৯

আমি স্পষ্ট বুঝতে পারলাম " - আমি কে ? কি বুঝতে পারার কথা বলা হয়েছে ? নানা রঙ্গের দিন নাটকের সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর

ami-sposhto-bujhte-parlam-ami-ke-ki-bujhte-parar-kotha-bola-hoyeche

১) " আমি স্পষ্ট বুঝতে পারলাম " - আমি কে ? কি বুঝতে পারার কথা বলা হয়েছে ? 

উত্তর :- গণনাট্য আন্দোলনের নাট্য কার রূপে পরিচিত অজিতেশ বন্দোপাধ্যায় রুশ নাট্যকার চেকভের  "Swan Song  " নামক  একাঙ্ক নাটকটির অনুকরণে রচনা করেন " নানা রঙ্গের দিন " নামক নাটকটি । যেখানে রজনী নামক একজন বৃদ্ধ অভিনেতা একাকী শূন্য মঞ্চে দাড়িয়ে গভীর রাতের অন্ধকারে জীবনের ফেলে আসা দিন গুলির স্মৃতিচারণা করেছেন ।

[ ] প্রায় আটষট্টিটা বছর পার করে এসেছেন তিনি , জীবনের শেষ বেলায় অনুভব করতে পেরেছেন নিজের জীবনের একাকীত্ব । যৌবন বয়সে যখন দর্শকদের হাততালি , তাদের অভিবাদন তাকে  মুগ্ধ করেছিল  তখন অভিনয় জগৎ ছাড়া অন্য সব কিছুকে তিনি খুব সহজেই অবহেলা করেছেন । কিন্তু সময় থেমে থাকেনি । সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে অভিনেতা রজনীকান্ত  চাট্টুজ্জে মূল অভিনেতার পাশাপাশি পার্শ্ব অভিনেতায় পরিণত হয়েছেন । বহু দর্শক যারা এক সময় তাঁকে মাথায়  করে রাখত পরবর্তী কালে তারাই সমালোচনা করতে শুরু করেছিল । তাদের মতে এই সব অভিনয় দেখেই ছেলেমেয়েদের ভবিষ্যত নষ্ট হয়ে যাচ্ছে । কিন্তু প্রতিভার তো অপমৃত্যু হয় না । তাই বারবার রজনীকান্তের শিল্পী সত্তা হাহাকার  করে উঠে ফেলে আসা  দিন গুলিকে ভুলতে না পেরে ।

[ ] রজনীকান্তের বাহিক চেহারার পরিবর্তন হয়েছে , গলার কাজ নষ্ট হয়েছে , চরিত্রকে ফুটিয়ে তোলার দক্ষতাও ধীরে ধীরে ম্লান  হয়েছে কিন্তু তবুও বাঁধক্য উপনীত রজনীকান্ত ফেলে আসা দিন গুলিকে ভুলতে পারে না । বুঝতে পারছেন দর্শক তাকে আর চায় না । কিন্তু তবুও শিল্পী সত্তার মৃত্যু হয় না জেনেই রাতের পর রাত ফাঁকা মঞ্চে অভিনয় করেছেন ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

/>