বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯

উচ্চ মাধ্যমিক বাংলা প্রশ্নসেট পার্ট ২

higher-secondary-bengali-proshno-set-part-2


                         Part - A

১)  অনধিক ১৫০ শব্দে যে  - কোনো একটি প্রশ্নের উত্তর দাও :



১) বুড়ো কর্তার মৃত্যুর পর বড়ো বাড়িতে কী কী ঘটনা ঘটেছিল ?

২) ' কে বাঁচায় কে বাচে ' গল্প নামকরণের সার্থকতা বিচার করো ।


২) অনধিক ১৫০ শব্দে যে - কোনো একটি প্রশ্নের উত্তর দাও :


১)  " কবিতায় জাগে / আমার বিবেক আমার বারুদ / বিষ্ফোরনের আগে ।" —–—– এই মন্তব্যটির মধ্যে দিয়ে কবির যে বিশেষ ভাবের প্রকাশ ঘটেছে তা আলোচনা করো ।

২) একটি তারা এখনো আকাশে রয়েছে " -
আকাশের তারা কে কেন্দ্র করে কবির ভাবনার যে মানুষ বিশিষ্টতা প্রকাশিত হয়েছে তা নিজের ভাষায় আলোচনা করো ।



৩)অনধিক ১৫০ শব্দে যে - কোনো একটি প্রশ্নের উত্তর দাও :


১) তাহলে আপনার হাসি জীবনে কোনোদিন পাবে না । বক্তার এই মন্তব্যের কারন " বিভাব " নাটক অবলম্বনে আলোচনা করো ।

২) সে রাতে এই জীবনের প্রথম মোক্ষম বুঝলাম যে , যারা বলে নাট্যভিনয় একটি প্রবিত্র শিল্প - তারা সব গাঁধা ' - বক্তা কখন এবং কেন এরকম সিদ্ধান্তে পৌঁছেছিলেন নিজের ভাষায় আলোচনা করো ।


৪) অনধিক ১৫০ শব্দে যে - কোনো একটি প্রশ্নের উত্তর দাও :


১)  চীনের প্রাচীর যখন শেষ হলো সেই সন্ধ্যায়
কোথায় গেল রাজমিস্ত্রিরা ? কবি এই মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে কোন সত্যকে প্রতিষ্টা করতে চেয়েছেন আলোচনা করো ।

২) হাসান আবদাল এক্ষণ যার নাম পাঞ্জা সাহেব ' গুরু নানকের হাতের ছাপ ওতে আজও লেগে রয়েছে " ! এই ঘটনাটি উল্লেখ করো ।




৫) অনধিক ১৫০ শব্দে যে - কোনো একটি প্রশ্নের উত্তর দাও :

১) চেয়ারের উপর যিনি বসে আছেন , তাকে দেখে আমি নিজের চোখকে বিশ্বাস হচ্ছিল না , চেয়াড়ের উপর কে বসেছিলেন ? লেখক তাকে কোথায় দেখেছিলেন ? লেখকের এই স্থান দেখার অভিজ্ঞতা সংক্ষেপে লেখো ?

২) কিন্তুু হাতি বেগার আর চলল না , হাতি বেগার আইন কি তা আলোচনা করো  ।  তা কেন আর চলল না ।



৬)অনধিক ১৫০ শব্দে যে - কোনো একটি প্রশ্নের উত্তর দাও :


১) প্রতয় কাকে বলে ? ব্যাবহারিক প্রয়োগের অবস্থান অনুযায়ী প্ৰতয়ের কটি ভাগ ও কী কী ? প্রত্যেক ভাগের একটি করে উদাহরণ দাও ।

২) গঠন গত দিক থেকে বাক্য কয় প্রকার ও কি কি ? প্রত্যেকটির একটি করে উদাহরণ দাও ।



৭)অনধিক ১৫০ শব্দে যে - কোনো একটি প্রশ্নের উত্তর দাও :

   

১) বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে ঋত্বিক ঘটক অবদান সংক্ষেপে আলোচনা করো ।
২) বাংলা গানে অতুলপ্রসাদ সেন এর অবদান আলোচনা করো ?

৩) প্রথম ভারতীয় দল হিসাবে আই এফ এ শিল্ড জয়ি মোহনবাগান ক্লাবের ইতিহাস পর্যলোচনা করো ।

৪) বাংলা বিজ্ঞান চর্চার ইতিহাসে বিধানচন্দ্র রায়  অবদান সংক্ষেপে আলোচনা করো ।



                        রচনা



১) ভারতের জাতীয় সংহতি ( রচনা )

২) নারীর অধিকার ভারতীয় সমাজে ( রচনা )

৩) বিতর্কের বিষয় - জীবিকার আদর্শ স্থান বিদেশ ।

৪) জীবনানন্দ দাশ ( জীবনীমূলক রচনা )



 
                      PART -  B


১)  ঠিক বিকল্পটি নির্বাচন করো :



১) না খেয়ে মরাটা উচিত নয় ভাই  । কথাটি বলেছে -

ক) মৃত্যুঞ্জয়

 খ) নিখিল

গ) মৃত্যুঞ্জয়ের ছোটো ভাই

ঘ) টুনুর মা

২) মৃত্যুঞ্জয়ের ধুলি মলিন সিল্কের জামা এ খন


ক) পরিছন্ন হয়েছে

খ) ছিড়ে গেছে

গ) অদৃশ্য হয়েছে

ঘ) নতুন হয়েছে


৩) উচ্ছবের গ্রাম - সম্পর্কিত বোনের নাম


ক) বাসিনী

 খ) চন্নুনী

গ) লক্ষী

 ঘ) টুনু


৪) ভারতবর্ষ গল্পে বৃষ্টি শুরু হয়েছিল


ক) সোমবার

খ) মঙ্গলবার

 গ) বুধবার

 ঘ) শনিবার


৫) ফজর কথাটির অর্থ


ক) ভোর

 খ) দুপুর

 গ) বিকেল

ঘ) সন্ধ্যা


৬) কবি রবীন্দ্রনাথের কাছে সত্যতার স্বরূপ হলো


ক) দুর্বোধ্য

খ) অজ্ঞেয়

 গ) কঠিন

 ঘ) ব্যাখার অতীত


৭) শিকার কবিতাটি শুরু হয়েছে যে শব্দ  দিয়ে


ক) সকাল

খ) বিকাল

গ) সন্ধ্যা

ঘ) ভোর


৮) মহুয়ার গন্ধ অবসান ঘটাবে


ক) বিষ্ণনতার

 খ) উৎ কণ্ঠার

গ) আনন্দের

 ঘ) ক্লান্তির



৯) আমি দেখি কবিতায় কবির চোখ চায়

ক) লাল

খ) নীল

গ) হলুদ

ঘ) সবুজ


১০) রজনীকান্ত চট্টোপাধ্যায় সেদিন যে চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন

ক) শাজাহান

 খ) দিলদার

 গ) ঔরঙ্গজেব

ঘ) মিরজুমলা



১১) গ্রিনরুমে ঘুমোই কে ঘুমোন


ক) কালি নাথ সেন

খ) রামব্রিজ

গ) রজনীকান্ত

 ঘ) রাম চরণ



১২) বিভাব নাটকে বৌদি হলেন


ক) শোভা সেন

খ) চিত্রা সেন

 গ) শাওলি মিত্র

ঘ) তৃপ্তি মিত্র



১৩) আলেকজান্ডার জয় করেছিলেন


ক) জাপান

খ) শ্রীলংকা

 গ) বাংলাদেশ

 ঘ) ভারত


১৪) বাংলা সঙ্গীতের আদিতম লিখিত নিদর্শন কি


ক) চর্যাপদ

খ) শ্রীকৃষ্ণ কীর্তন

গ) বৈষ্ণব পদাবলী

ঘ) বাউল গান



১৫) কোন ছবিটি ফেলুদা সিরিজের নয়


ক) বোম্বাইয়ের বোম্বেটে

খ) যত কান্ড কাঠমান্ডুতে

গ) সোনার কেল্লা

ঘ) সবুজ দ্বীপের রাজা



১৬) বেঙ্গল কেমিক্যালস এর প্রতিষ্ঠাতা


ক) প্রফুল্লচন্দ্র রায়

 খ) সত্যেন্দ্রনাথ বসু

 গ) মেঘনাদ সাহা

 ঘ) জগদীশ চন্দ্র বসু



১৭) অর্থের অভিন্নতা বোঝাতে ব্যবহৃত হয়


ক) ব্যাপকাথক শব্দ

 খ) বিপরীতাথক শব্দ

গ) সমার্থক শব্দ

ঘ) কোনোটিই নয়


১৮) গঠন গত দিক থেকে বাক্য


ক) এক প্রকার

খ) দুই প্রকার

গ) তিন প্রকার

ঘ) চার প্রকার



২। অনধিক কুড়িটি শব্দে প্রশ্ন গুলির উত্তর দাও :



১) জীবন ধারনের অন্নে মানুষের দাবী যে জন্মাচ্ছে না , তার মূল কারণ কি বলে মনে করে নিখিল ?

২) ভারতবর্ষ গল্পের বুড়ির চেহারা কেমন ছিল ?

৩) সে কখনো করে না বঞ্চনা  - এরূপ বলার কারন কি ?

৪) সুন্দরীর বন থেকে অর্জুনের বনে ঘুরে ঘুরে ! কে কেন ঘুরছিল ?

৫) ঘুমহীন তাদের চোখে হানা দেয় - কাদের চোখে কি হানা দেয় ?
৬) নিহত ভাইয়ের শবদেহ দেখে - কে এই নিহত
ভাই ?

৭) ওগো , তুমি পালাও - কোথা দিয়ে বৌদি পালাতে বলেছেন ?

৮) রাজনীতি বড়ো কুট । - কে এ কথা বলেছিলেন ?

৯) সে সন্ধ্যায় কোথায় গেল রাজমিস্ত্রিরা - রাজমিস্ত্রিরা কোথায় গেল  ?

১০) নাসিক্যধ্বনির উদাহরণ দাও ?

১১) সুরতরঙ্গ উদাহরণ দিয়ে বোঝাও ?

১২) পরাধীন রুপমূলের একটি উদাহরণ দাও ?

/>

সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯

মিলের অন্বয় ব্যতিরেকি পদ্ধতি উত্তর

miler-onnoyi-betiraki-podhoti


মিলের অন্বয় ব্যতিরেকি পদ্ধতি উত্তর 


উত্তর:-  মিল অন্বয় ব্যতিরেকি পদ্ধতির সুত্রটিতে এই ভাবে ব্যাক্ত করেছেন , " আলোচ্য ঘটনা টি উপস্থিত আছে এরূপ দুই বা ততোধিক দৃষ্টান্তে যদি কেবলমাত্র একটি ঘটনা সব সময়ই উপস্থিত থাকে এবং আলোচ্য ঘটনা টি উপস্থিত থাকে । তাহলে যে ঘটনাটির জন্য এই দুই শ্রেণীর দৃষ্টান্তের মধ্যে পার্থক্য দেখা যায় সেই ঘটনাটি হয় আলোচ্য ঘটনার কার্য বা কারন বা কারনের অপরিহার্য অংশ ।
[  ] মিল পদ ও সূত্রটিকে এই ভাবে ব্যাখা করা যায় । পর্যবেক্ষণের পাওয়া কতক গুলো দৃষ্টান্তে একটি ঘটনা উপস্থিত থাকলে যদি দেখা যায় যে , এই সব দৃষ্টান্তে অন্য একটি ঘটনাও উপস্থিত রয়েছে  এবং যদি পূর্বের ঘটনাটি অনুপস্থিত থাকে । আমরা অনুমান করতে পারি যে এই দুটি ঘটনার কার্য কারন সম্পর্ক আছে ।

[   ] এই পদ্ধতিকে অন্বয় ব্যতিরেকি বলা হয় । কারন এক্ষেত্রে সাদৃশ্য এবং বৈসাদৃশ্য উভয় বর্তমান সদর্থক দৃষ্টান্তে গুচ্ছের দিক থেকে এই পদ্ধতি হল অন্বয় ব্যতিরেকি পদ্ধতি ।
সদর্থক ও নর্থক দুই রকমের উদাহরন আছে বলে এই পদ্ধতি কে অনেকটা  ব্যতিরেকি পদ্ধতি বলা যায় ।

সাংকেতিক উদাহরণ:-

     
              সদর্থক দৃষ্টান্ত                       
    
         নর্থক দৃষ্টান্ত  
                                                                   


পূর্ববর্তী ঘটনা                          

অনুবর্তী ঘটনা                     পূর্ববতী                           অনুবর্তী                           
ABC         
            
abc                    BCD                   bcd             
ACD

acd                DEF                    def            
ADE                                             ade          
                                           
                              
EFG                                 efg                                  



A হল a এর কারন |

এক্ষেত্রে সদর্থক দৃষ্টান্তে গুচ্ছে দেখা যায় যে, পূর্ববর্তী ঘটনার মধ্যে  A এবং অনুবর্তী ঘটনার মধ্যে  a সব সময় এক সঙ্গে উপস্থিত আছে । আবার নর্থক দৃষ্টান্ত গুচ্ছ দেখা যায় যে পূর্ববর্তী ঘটনার মধ্যে A এবং অনুবর্তী ঘটনা a সব সময় এক সঙ্গে অনুপস্থিত আছে , কাজেই সদর্থক দৃষ্টান্ত গুচ্ছ দুটি ঘটনার অনুপস্থিতর সাদৃশ্য দেখে অনুমান করা যায় যে ,A  হল a এর কারন । 

বাস্তব উদাহরণ :– 
                           ১)  যখনই সৌরভ ভারতীয় দলের হয়ে খেলে তখনই ভারত জয়লাভ করে । আবার সৌরভ যখনই ভারতীয় দলে অনুপস্থিত থাকে তখনই ভারত পরাজিত হয় । সুতরাং সৌরভের উপস্থিত হল ভারতীয় দলের সাফল্যের কারন ।
২) যেখানে যেখানে ম্যালেরিয়া সেখানে সেখানে মশার কামড় । আবার যেখানে যেখানে ম্যালেরিয়া নেই সেখানে সেখানে মশার কামড় নেই । অতএব মশার কামড়ই ম্যালেরিয়ার কারন ।

সুবিধা :–
         ১) এই পদ্ধতির প্রয়োগের ক্ষেত্র খুবই ব্যাপক । যেসব ক্ষেত্রে পরিমাণ সম্ভব নয় সেইসব ক্ষেত্রে এই পদ্ধতির প্রয়োগ করা যায় না । 

২) এই পদ্ধতির সাহায্য আমরা কার্য থেকে কারনে এবং কারন থেকে কার্যে অগ্রসর হতে পারি ।
৩) এই পদ্ধতির সাহায্য যে সিদ্ধান্ত পাওয়া যায় তা বহুকারন সম্ভবনা থেকে অনেকাংশে মুক্ত । 

৪) এই পদ্ধতির সদর্থক ও নর্থক  দৃষ্টান্ত গুচ্ছের সাহায্য দুটি ঘটনার মধ্যে কার্য কারন সম্পর্ক স্থাপন করে । এই কারনে এই পদ্ধতিকে অন্বয় ব্যতিরেকি পদ্ধতির পরিবর্তিত উন্নত রূপে বলা হয় । 

অসুবিধা :–
           ১) এই পদ্ধতির পর্যবেক্ষণের উপর নির্ভরশীল বলে পর্যবেক্ষণের দোষ ( অপর্যবেক্ষণ দোষ ) দেখা দেবার সম্ভবনা থাকে । 

২) এই পদ্ধতিকে কার্য কারন কে সহ অবস্থান থেকে পৃথক করতে পারে না । দুটি ঘটনা সব সময় এক সঙ্গে উপস্থিত থাকলেই তাদের মধ্যে কার্য কারন সম্পর্ক থাকবে এই কথা কখনই সুনিশ্চিত ভাবে বলা যাবে না ।
৩) এই পদ্ধতির নর্থক দৃষ্টান্ত গুচ্ছ কে সংগ্রহ করা খবুই কষ্ট সাধ্য ও শ্রম সাপেক্ষ । 

৪) পর্যবেক্ষণের উপর নির্ভরশীল হওয়ার জন্য এই পদ্ধতি কেবলমাত্র কার্য কারন সম্পর্কের ইঙ্গিত দেয় কিন্তু নিশ্চিত ভাবে প্রমাণ করতে পারে না ।  ।






রবিবার, ১ ডিসেম্বর, ২০১৯

আমি স্পষ্ট বুঝতে পারলাম " - আমি কে ? কি বুঝতে পারার কথা বলা হয়েছে ? নানা রঙ্গের দিন নাটকের সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর

ami-sposhto-bujhte-parlam-ami-ke-ki-bujhte-parar-kotha-bola-hoyeche

১) " আমি স্পষ্ট বুঝতে পারলাম " - আমি কে ? কি বুঝতে পারার কথা বলা হয়েছে ? 

উত্তর :- গণনাট্য আন্দোলনের নাট্য কার রূপে পরিচিত অজিতেশ বন্দোপাধ্যায় রুশ নাট্যকার চেকভের  "Swan Song  " নামক  একাঙ্ক নাটকটির অনুকরণে রচনা করেন " নানা রঙ্গের দিন " নামক নাটকটি । যেখানে রজনী নামক একজন বৃদ্ধ অভিনেতা একাকী শূন্য মঞ্চে দাড়িয়ে গভীর রাতের অন্ধকারে জীবনের ফেলে আসা দিন গুলির স্মৃতিচারণা করেছেন ।

[ ] প্রায় আটষট্টিটা বছর পার করে এসেছেন তিনি , জীবনের শেষ বেলায় অনুভব করতে পেরেছেন নিজের জীবনের একাকীত্ব । যৌবন বয়সে যখন দর্শকদের হাততালি , তাদের অভিবাদন তাকে  মুগ্ধ করেছিল  তখন অভিনয় জগৎ ছাড়া অন্য সব কিছুকে তিনি খুব সহজেই অবহেলা করেছেন । কিন্তু সময় থেমে থাকেনি । সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে অভিনেতা রজনীকান্ত  চাট্টুজ্জে মূল অভিনেতার পাশাপাশি পার্শ্ব অভিনেতায় পরিণত হয়েছেন । বহু দর্শক যারা এক সময় তাঁকে মাথায়  করে রাখত পরবর্তী কালে তারাই সমালোচনা করতে শুরু করেছিল । তাদের মতে এই সব অভিনয় দেখেই ছেলেমেয়েদের ভবিষ্যত নষ্ট হয়ে যাচ্ছে । কিন্তু প্রতিভার তো অপমৃত্যু হয় না । তাই বারবার রজনীকান্তের শিল্পী সত্তা হাহাকার  করে উঠে ফেলে আসা  দিন গুলিকে ভুলতে না পেরে ।

[ ] রজনীকান্তের বাহিক চেহারার পরিবর্তন হয়েছে , গলার কাজ নষ্ট হয়েছে , চরিত্রকে ফুটিয়ে তোলার দক্ষতাও ধীরে ধীরে ম্লান  হয়েছে কিন্তু তবুও বাঁধক্য উপনীত রজনীকান্ত ফেলে আসা দিন গুলিকে ভুলতে পারে না । বুঝতে পারছেন দর্শক তাকে আর চায় না । কিন্তু তবুও শিল্পী সত্তার মৃত্যু হয় না জেনেই রাতের পর রাত ফাঁকা মঞ্চে অভিনয় করেছেন ।

/>

সোমবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৯

বাংলা কথা সাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় জীবনী

sarat-chandra-chattopadhyay-biography


জন্ম ও পরিবার :- শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ১৮৭৬ খ্রিষ্টাব্দের ১৫ সেপ্টেম্বর দেবানন্দপুর গ্রামে এক দরিদ্র ব্রাহ্মণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মতিলাল চট্টোপাধ্যায় ও মাতার নাম ভুবনমোহিনী দেবী। পাঁচ ভাই আর বোনের মধ্যে শরৎচন্দ্র ছিলেন দ্বিতীয়। তার দিদি অনিলা দেবী ছাড়াও প্রভাসচন্দ্র ও প্রকাশচন্দ্র নামে তার দুই ভাই ও সুশীলা দেবী নামে তার এক বোন ছিল। শরৎচন্দ্রের ডাকনাম ছিল ন্যাঁড়া। দারিদ্র্যের কারণে মতিলাল স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে ভাগলপুরে শ্বশুরবাড়িতে থাকতেন বলে শরৎচন্দ্রের শৈশবের অধিকাংশ সময় এই শহরেই কেটেছিল।
শিক্ষাজীবন ও কর্মজীবন  :-  শরৎচন্দ্রের পাঁচ বছর বয়সকালে মতিলাল তাকে দেবানন্দপুরের প্যারী পণ্ডিতের পাঠশালায় ভর্তি করে দেন, যেখানে তিনি দু-তিন বছর শিক্ষালাভ করেন। এরপর ভাগলপুর শহরে থাকাকালীন তার মামা তাকে স্থানীয় দুর্গাচরণ বালক বিদ্যালয়ে ছাত্রবৃত্তিতে ভর্তি করিয়ে দেন। ১৮৮৭ খ্রিষ্টাব্দে শরৎচন্দ্র ভাগলপুর জেলা স্কুলে ভর্তি হন। ১৮৮৯ খ্রিষ্টাব্দে মতিলালের ডিহিরির চাকরি চলে গেলে তিনি তার পরিবার নিয়ে দেবানন্দপুরে ফিরে গেলে শরৎচন্দ্র জেলা স্কুল ত্যাগ করতে বাধ্য হন। এই সময় তিনি হুগলি ব্রাঞ্চ স্কুলে ভর্তি হন, কিন্তু ১৮৯২ খ্রিষ্টাব্দে দারিদ্র্যের কারণে স্কুলের ফি দিতে না-পারার কারণে তাকে এই বিদ্যালয়ও ত্যাগ করতে হয়। এই সময় তিনি 'কাশীনাথ' ও 'ব্রহ্মদৈত্য' নামে দুটি গল্প লেখেন। ১৮৯৩ খ্রিষ্টাব্দে মতিলাল পুনরায় ভাগলপুর ফিরে গেলে প্রতিবেশী সাহিত্যিক তথা তেজনারায়ণ জুবিলি কলেজিয়েট স্কুলের শিক্ষক পাঁচকড়ি বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষালাভের প্রতি শরৎচন্দ্রের আগ্রহ লক্ষ করে তাকে তার বিদ্যালয়ে ভর্তি করে দেন। এই বিদ্যালয় থেকে ১৮৯৪ খ্রিষ্টাব্দে দ্বিতীয় বিভাগে এনট্রান্স পরীক্ষা পাস করে তেজনারায়ণ জুবিলি কলেজে ভর্তি হন। এই সময় তিনি তার মাতামহের ছোটো ভাই অঘোরনাথের দুই পুত্র সুরেন্দ্রনাথ ও গিরীন্দ্রনাথকে প্রতি রাতে পড়াতেন, তার বিনিময়ে অঘোরনাথ তার কলেজে পড়ার প্রয়োজনীয় অর্থ জোগাতেন। এতৎসত্ত্বেও এফএ পরীক্ষার ফি জোগাড় করতে না-পারার জন্য তিনি পরীক্ষায় বসতে পারেননি।

[ ] কলেজ ত্যাগ করার পর শরৎচন্দ্র ভাগলপুর শহরের আদমপুর ক্লাবের সদস্যদের সঙ্গে খেলাধুলো ও অভিনয় করে সময় কাটাতে শুরু করেন। এই সময় প্রতিবেশী বিভূতিভূষণ ভট্টের বাড়িতে একটি সাহিত্যসভার আয়োজন করেছিলেন, যার ফলশ্রুতিতে তিনি বড়দিদি, 'দেবদাস', চন্দ্রনাথ, শুভদা ইত্যাদি উপন্যাস এবং 'অনুপমার প্রেম', আলো ও ছায়া, 'বোঝা', হরিচরণ' ইত্যাদি গল্প রচনা করেন। এই সময় তিনি বনেলী রাজ-এস্টেটে কয়েকদিন চাকরি করেন। কিন্তু পিতার ওপর কোনো কারণে অভিমানবশত তিনি সন্ন্যাসী সেজে ঘর ছেড়ে চলে যান। এই সময় তার পিতার মৃত্যু হলে তিনি ভাগলপুর ফিরে এসে পিতার শ্রাদ্ধ সম্পন্ন করে কলকাতা যাত্রা করেন, যেখানে তিনি কলকাতা উচ্চ আদালতের উকিল লালমোহন গঙ্গোপাধ্যায়ের বাড়িতে হিন্দি বইয়ের ইংরেজি তর্জমা করার জন্য মাসে ত্রিশ টাকা বেতনের চাকরি পান। এই সময়, তিনি 'মন্দির' নামে একটি গল্প লিখে 'কুন্তলীন' প্রতিযোগিতায় পাঠালে তা বিজয়ী ঘোষিত হয় ।

[ ] ছয় মাস লালমোহনের বাড়িতে কাটানোর পর শরৎচন্দ্র ১৯০৩ খ্রিষ্টাব্দের জানুয়ারি মাসে রেঙ্গুনে লালমোহন গঙ্গোপাধ্যায়ের ভগ্নিপতি উকিল অঘোরনাথ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে চলে যান। অঘোরনাথ তাকে বর্মা রেলওয়ের অডিট অফিসে একটি অস্থায়ী চাকরির ব্যবস্থা করে দেন। দুই বছর পর তার চাকরি চলে গেলে তিনি তার বন্ধু গিরীন্দ্রনাথ সরকারের সঙ্গে পেগু চলে যান ও সেখানে অবিনাশ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে বসবাস করেন। ১৯০৬ খ্রিষ্টাব্দের এপ্রিল মাসে বর্মার পাবলিক ওয়ার্কস অ্যাকাউন্টস অফিসের ডেপুটি একজামিনার মণীন্দ্রনাথ মিত্রের সাহায্যে শরৎচন্দ্র রেঙ্গুনে এই অফিসে চাকরি পান ও পরবর্তী দশ বছর এই চাকরি করেন।

[ ] ১৯১২ খ্রিষ্টাব্দের অক্টোবর মাসে শরৎচন্দ্র এক মাসের ছুটি নিয়ে দেশে ফিরে এলে 'যমুনা' নামে পত্রিকার সম্পাদক ফনীন্দ্রনাথ পাল তাকে পত্রিকার জন্য লেখা পাঠাতে অনুরোধ করেন। সেই অনুযায়ী, শরৎচন্দ্র রেঙ্গুনে ফিরে গিয়ে রামের সুমতি গল্পটি পাঠিয়ে দেন, যা যমুনা পত্রিকায় ১৩১৯ বঙ্গাব্দের ফাল্গুন ও চৈত্র্য সংখ্যায় প্রকাশিত হয়। এরপর তিনি 'ভারতবর্ষ' পত্রিকার জন্যেও লেখা পাঠাতে শুরু করেন। ফনীন্দ্রনাথ পাল তার উপন্যাস বড়দিদি পুস্তকাকারে প্রকাশ করেন। এমসি সরকার অ্যান্ড সন্স ও গুরুদাস চট্টোপাধ্যায় অ্যান্ড সন্স তার উপন্যাসগুলি পুস্তকাকারে প্রকাশ করেন। ১৯১৬ খ্রিষ্টাব্দে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ছুটি নিয়ে মনোমালিন্যের কারণে শরৎচন্দ্র চাকরিতে ইস্তফা দিয়ে রেঙ্গুন বাংলায় ফিরে আসেন।


শেষ জীবন :- মধ্যবয়সে শরৎচন্দ্র হাওড়া জেলার পানিত্রাস (সামতাবেড়) গ্রামের মাটির বাড়িতে বাস করতেন। দক্ষিণ-পূর্ব রেলের দেউলটি স্টেশন থেকে চার-পাঁচ কিলোমিটারের পথ সামতাবেড়ের বাড়িটা রূপনারায়ণ নদের তীরে এক মনোরম পরিবেশে অবস্থিত। পাশাপাশি দুটো পুকুরে সানের ঘাট, বাগান, ডালিম, পেয়ারা গাছে ঘেরা। ১৯৭৮ খ্রিষ্টাব্দের ঘরভাঙানি বন্যায় পাশাপাশি সব গাঁয়ের মাটির বাড়ি নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছিল। শরৎচন্দ্রের মাটির বাড়িটা রূপনারায়ণের কূলে থেকেও আশ্চর্যজনকভাবে রক্ষা পেয়ে যায়। জানালা পর্যন্ত ভিতটা ইঁট-সিমেন্টে গাঁথা ছিল বলে কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত হলেও পড়ে যায়নি। পরে সরকারি উদ্যোগে মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ করা হচ্ছে। পরবর্তীতে শরৎচন্দ্র শিবপুরেও থাকতেন। শিবপুর ব্যাতাইতলা বাজার থেকে চ্যাটার্জিহাট পর্যন্ত রাস্তা শরৎচন্দ্রের নামেই চালু আছে। ১৯৩৭ খ্রিষ্টাব্দে শরৎচন্দ্র প্রায়শই অসুস্থ থাকতেন। চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি স্বাস্থ্য উদ্ধারের উদ্দেশ্যে দেওঘরে তিন চার মাস কাটিয়ে কলকাতা ফিরে এলে আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। এই সময় তার যকৃতের ক্যান্সার ধরা পড়ে, যা তার পাকস্থলী পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছিল। বিধানচন্দ্র রায়, কুমুদশঙ্কর রায় প্রমুখ চিকিৎসক তার অস্ত্রোপচারের পক্ষে মত দেন। চিকিৎসার জন্য তাকে প্রথমে দক্ষিণ কলকাতার সাবার্বান হসপিটাল রোডের একটি ইউরোপীয় নার্সিং হোমে ও পরে ৪ নম্বর ভিক্টোরিয়া টেরাসে অবস্থিত পার্ক নার্সিং হোমে ভর্তি করা হয়। ১৯৩৮ খ্রিষ্টাব্দের ১২ জানুয়ারি শল্য চিকিৎসক ললিতমোহন বন্দ্যোপাধ্যায় তার দেহে অস্ত্রোপচার করেন, কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। চার দিন পর ১৬ জানুয়ারি সকাল দশটায় শরৎচন্দ্র শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন ।


উপন্যাস :- তিনি ২০ টি উপন্যাস লিখেন সেগুলি হলো  বড়দিদি, বিরাজবৌ, পন্ডিতমশাই, পল্লী-সমাজ, চন্দ্রনাথ, শ্রীকান্ত-প্রথম পর্ব, দেবদাস, চরিত্রহীন, দত্তা, শ্রীকান্ত-দ্বিতীয় পর্ব, গৃহদাহ, বামুনের মেয়ে, দেনা পাওনা, নব-বিধান, পথের দাবী, শ্রীকান্ত-তৃতীয় পর্ব, শেষ প্রশ্ন, শ্রীকান্ত-চতুর্থ পর্ব, বিপ্রদাস, শুভদা, 
নাটক:- নাটক ৪ টি রচনা করেন সেগুলি হলো ষোড়শী, রমা, বিরাজ বউ, বিজয়া, 
গল্প :-  ২১ ছোটো গল্প রচনা করেন এবং তাঁর রচিত গল্প গুলি বাংলা সাহিত্যে তাকে এক অন্য মর্যাদা দিয়েছে । তার লেখা গল্প গুলি হলো
রামের সুমতি ,পরিণীতা, বিন্দুর ছেলে, পথ-নির্দেশ, মেজদিদি, আঁধারে আলো ,দর্পচূর্ণ ,বৈকুণ্ঠের উইল, অরক্ষণীয়া, নিষ্কৃতি, কাশীনাথ, স্বামী, ছবি, বিলাসী, মামলার ফল, হরিলক্ষ্মী, মহেশ, অভাগীর স্বর্গ, অনুরাধা, সতী, পরেশ, 
প্রবন্ধ:- তিনি ১২ টি প্রবন্ধ রচনা করেন সেগুলি হলো  নারীর মূল্য,তরুণের বিদ্রোহ, স্বদেশ ও সাহিত্য, স্বরাজ সাধনায় নারী, শিক্ষার বিরোধ,স্মৃতিকথা,অভিনন্দন,ভবিষ্যৎ বঙ্গ-সাহিত্য,গুরু-শিষ্য সংবাদ,সাহিত্য ও নীতি,সাহিত্যে আর্ট ও দুর্নীতি,ভারতীয় উচ্চ সঙ্গীত,

চলচ্চিত্রায়ণ :- তার সাহিত্য-কর্মকে ঘিরে ভারতীয় উপমহাদেশে এ পর্যন্ত প্রায় পঞ্চাশটি চলচ্চিত্র বিভিন্ন ভাষায় তৈরি হয়েছে । তার মধ্যে 'দেবদাস' উপন্যাসটি বাংলা, হিন্দি এবং তেলেগু ভাষায় আটবার তৈরি হয়। এছাড়াও তার যেসমস্ত গল্প এবং উপন্যাস নিয়ে চলচ্চিত্র হয়েছে  সেগুলি হলো বড়দিদি , পরিণীতা , রজলক্ষ্মী-শ্রীকান্ত , মাঝলি দিদি , স্বামী, বিন্দুর ছেলে ।

[ ] বাংলা সাহিত্যে কথা শিল্পী হিসেবে তিনি এক উজ্জ্বল স্থান পেয়েছেন বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে । তার ছোটো গল্প গুলো মানুষের খুব কাছের হয়ে থেকে গেছে ।

মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৯

রাষ্ট্র বিজ্ঞান প্রশ্ন সেট পাঠ ৯

pol-seince-test-papers-9


    PART - A ( MARKS :- 40 )

১) নিম্নলিখিত প্রশ্ন গুলির উত্তর দাও ।

১) ভারতীয় বিচার ব্যাবস্থার মূল বৈশিষ্ট্যগুলি ব্যাখা করো।

২) ভারতের পার্লমেন্টের দুটি কক্ষের মধ্যে সাংবিধানিক সম্পর্ক আলোচনা করো ।

৩) রাজ্যের প্রশাসনে মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষমতা ও পদ মর্যাদা আলোচনা করো ।

৪) উদারনীতি বাদের তিনটি ধারা বলতে কি বোঝায় ? সার্বিক উদারনৈতিক মতবাদের মূল বৈশিষ্ট্য সমুহ আলোচনা করো ?

৫) রাষ্ট্রিয় সার্বভৌমত্বের ওপর বিশ্বায়নের প্রভাব আলোচনা করো ?


                    PART - B


১) বিকল্প উত্তর গুলির মধ্যে থেকে সঠিক উত্তর টি বেছে নিয়ে লেখো ।



১) ঠান্ডা লড়াইয়ের উৎস খুঁজে পাওয়া যায় ?
ক) ভাসাই চুক্তির মধ্যে

খ) মনরো নীতির মধ্যে

  গ) ১৯৭১ সালে রাশিয়ান বলশেভিক পার্টির ক্ষমতা দখলের মধ্যে

ঘ) দ্বিতীয় যুদ্ধ কালে মার্কিন - সোভিয়েত বিরোধের মধ্যে ।


২) জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের জনক বলা হয় ?
ক) নাসেরকে   

খ) নেহেরু কে

গ) টিটো কে     
         
   ঘ) নক্রুমাকে ।

৩) জোট নিরপেক্ষ আন্দোলন কে বাদ দিয়ে আন্তজার্তিক সম্পর্কের  কোন তত্ত্ব পূর্ণতা লাভ করতে পারে না - মন্তব্যটি করেন  ?

ক) নেহেরু 
খ) টিটো
 গ) বার্টন.         
ঘ) ম্যান্ডেলা ।

৪) "Politics Among Nation   " গ্রন্থটির প্রণেতার নাম ?


৫) ভারত পোখরানে প্রথম পারমাণবিক বিষ্ফোরন ঘটায় ?

ক) ১৯৬৫     
খ) ১৯৭৪
গ) ১৯৮০.       
ঘ) ১৯৬২ ।

৬) সার্কের জন্ম হয় _ তে অনুষ্ঠিত শিষ সম্মেলনে ?

ক) কলম্ব     
খ) কাঠমান্ডু
গ) নতুন দিল্লি     
ঘ) ঢাকা ।

৭) নিরাপত্তা পরিষদের মোট সদস্য সংখ্যা কত ?

ক) ১৫     
খ) ২০
 গ) ২৫.   
ঘ) ৪০

৮) বিশ্ব ব্যাংকের সদর দপ্তরটি অবস্থিত ?

ক) ওয়াশিংটনে 
খ) ভিয়েনয়
গ) ফ্রান্সে.     
ঘ) নিউ জার্সিতে ।

৯) বর্তমান অছি পরিষদের  সদস্য সংখ্যা হল ?

ক) ০     
খ) ৩
গ) ৫     
ঘ) ৯

১০) জাতিপুঞ্জের মহাসচিবের কার্যকালের মেয়াদ _ বছর ?

ক) ৩       
খ) ৫
গ) ৭.         
ঘ) ৯ ।

১১) ক্ষমতা সতন্ত্রিকরণ নীতির প্রধান প্রবক্তার নাম ?

ক) অ্যারিস্টটল.   
খ) জনলক

 গ) মন্তেশকু.         
ঘ) মার্কস ।

১২) পৃথিবীর সর্বাপেক্ষা শক্তিশালী দ্বিতীয় কক্ষ হলো ?

ক) মার্কিন সিনেট 
   
খ) ফরাসী সিনেট

 গ) লর্ড সভা.     
ঘ) লোকসভা ।

১৩) ব্রিটিশ পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষের নাম  কি ?

ক) সিনেট       
খ) লর্ড সভা

গ) কমন্স সভা   
ঘ) রাজ্যসভা ।

১৪) শাসন বিভাগে স্থায়ীভাবে নিযুক্ত কর্মচারীদের বলা হয় ?

ক) মন্ত্রী. 
খ) আমলা

 গ) বিচারক       

ঘ) সচিব ।

১৫) আমলাতন্ত্র প্রধান্য পায় ?

ক) উদারনৈতিক গণতন্ত্রে 
                             
খ)  সমাজ তান্ত্রিক গণতন্ত্রে

গ) প্রত্যক্ষ গণতন্ত্রে   
                                         
ঘ)  দলগত গণতন্ত্রে ।

১৬) নাম সর্বস্ব শাসকের উদাহরণ হলো ?

ক) ব্রিটেনের রাজা বা রানী.

খ) ভারতের প্রধানমন্ত্রী

গ) মার্কিন রাষ্ট্রপতি. 

ঘ) ফরাসী প্রধানমন্ত্রী ।

১৭) ভারতের প্রথম জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষিত হয়েছে ?

ক) ১৯৫৫ সালে
                       
খ)১৯৬০ সালে

গ) ১৯৬২ সালে 
ঘ) ১৯৭১ সালে ।

১৮) অর্থবিল কে রাজ্যসভা আটকে রাখতে পারে সর্বাধিক ?

ক) ১৪ দিন.       
খ) ১ মাস

 গ) ৬ মাস.         
ঘ) ১ বছর ।

১৯) বিধানসভার সদস্য হতে গেলে নুন্যতম বয়স হতে হয় ?

ক) ২৫ বছর     
             
খ) ৩০ বছর

 গ) ৩৫ বছর.     

ঘ) ৪০ বছর ।

২০) ন্যায় পঞ্চায়েতের সদস্য সংখ্যা হল ?

ক) ৩ জন     

খ) ৫ জন

গ) ৭ জন       

ঘ) ৯ জন ।

২১) মেয়রের কার্যকালের মেয়াদ ?

ক) ১ বছর     
খ) ৩ বছর

 গ) ৫ বছর.       
ঘ) ৬ বছর ।

২২) গণ তন্ত্রের ভিত্তি হিসেবে স্থানীয়  স্বয়ওশাসন প্রয়োজন - উক্তিটি করেছেন ?

ক) লর্ড ব্রাউস   

খ) লেস্কি

গ) নেহেরু.     
ঘ) গান্ধীজী ।

২৩) ব্লক পর্যায়ে স্বয়ওশাসন মূলক প্রতিষ্ঠান হলো ?

ক) গ্রাম পঞ্চায়েত   

খ) ন্যায় পঞ্চায়েত

গ) পঞ্চায়েত সমিতি.       

ঘ) জেলা পরিষদ ।

২৪) পঞ্চায়েত সমিতির প্রশাসনিক আধিকারীক হলেন ?

ক) এসডিও

খ) বিডিও

গ) সভাপতি

ঘ) ডিএম ।




২) নিম্নলিখিত প্রশ্ন গুলির অতি সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও ।




১) দাঁতাত ও ঠান্ডা লড়াইয়ের মধ্যে পাথক্য কি ?

২) চিন - সোভিয়েত বিরোধের যেকোনো একটি কারন লেখো ?

৩) পঞ্চশীল নীতি কে প্রথম কত সালে ঘোষনা করেন ?

৪) " সুয়েজ সংকট " কখন সংগঠিত হয় ?

৫) পর রাষ্ট্র নীতির নির্ধারন বলতে কি বোঝো ?

৬) NPT  - এর পুরো কথাটি কি ?

৭)  CTBT - এর পুরো কথাটি কি ?

৮) বিশ্বের দুটি উল্লেখযোগ্য আঞ্চলিক সংস্থার নাম করো ?

৯) আন্তজার্তিক বিচারালয় কতজন বিচারপতি নিয়ে গঠিত হয় ?

১০) IMF - এর প্রধান ২ টি কাজের উল্লেখ করো ?

১১)  WHO -  এর দুটি কাজের উল্লেখ করো ?

১২) পঞ্চায়েত ব্যাবস্থায় মহিলাদের জন্য কত আসন সংরক্ষিত থাকে ?

১৩) গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য গণ কিভাবে নির্বাচিত হন ?

১৪) আজ পর্যন্ত ভারতে কতবার আর্থিক জরুরি অবস্থা ঘোষণা ঘোষিত হয়েছে  ?

১৫) " Spirit Of The Laws "  - গ্রন্থটির প্রণেতা কে ?

১৬)"  Commentaries Of The Laws Of England "  - গ্রন্থটির প্রণেতা কে ?




/>

রাষ্ট্রবিজ্ঞান প্রশ্ন সেট পার্ট ৮

political-science-questions-set-part-8




    PART - A ( MARKS :- 40 )

১) নিম্নলিখিত প্রশ্ন গুলির উত্তর দাও ।



১) জাতীয় স্বার্থ বলতে কি বোঝায় ? জাতীয় স্বার্থের ধারনা বিশ্লেষণ করো  ।

২) উদারনীতি বাদের অর্থ ও সংজ্ঞা দাও ? উদারনীতি বাদের উৎপতি ও বিকাশ সম্পর্কে আলোচনা করো ?

৩) এক কক্ষ বিশিষ্ট আইন সভা বলতে কি বোঝায় ? এক কক্ষ বিশিষ্ট আইন সভার পক্ষে ও বিপক্ষে যুক্তি দাও ।

৪) রাজ্যের প্রশাসনে মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষমতা ও পদ মর্যাদা আলোচনা করো ।

৫) ভারতীয় বিচার ব্যাবস্থার মূল বৈশিষ্ট্যগুলি ব্যাখা করো।



               PART - B 


১) বিকল্প উত্তর গুলির মধ্যে থেকে সঠিক উত্তর টি বেছে নিয়ে লেখো ।



১) গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রশাসনিক কাজে সহায়তা করেন ?
ক) প্রধান
খ) উপপ্রধান
গ) কর্মসচিব
ঘ) বিডিও

২) গ্রাম পঞ্চায়েতের কার্যকাল হলো ?
ক) ৩ বছর
খ) ৪ বছর
গ) ৫ বছর
ঘ) ৬ বছর

৩) পঞ্চায়েত সমিতির প্রশাসনিক আধিকারীক হলেন ?
ক) এসডিও
খ) বিডিও
গ) সভাপতি
ঘ) ডিএম

৪) জেলা পরিষদের প্রধান হলেন ?

ক) সভাপতি
খ) সভাধিপতি
গ) প্রধান
ঘ) বিডিও

৫) জেলা পরিষদের  প্রশাসনিক কর্মকর্তা হলেন ?
ক) বিডিও
খ) এসডিও
গ) ডিএম
ঘ) কর্মসচিব

৬) পঞ্চায়েতে কত গুলি সভায় হাজির না থাকলে সদস্যপদ বাতিল হয় ?
ক) ২ টি
খ) পরপর ৩ টি
গ) ৪ টি
ঘ) ৫ টি


৭) গ্রাম পঞ্চায়েত গঠিত হয় ?
ক) ৫–৩০ জন সদস্য নিয়ে
খ) ৫–৩৫ জন সদস্য নিয়ে
গ) ৩–৩০ জন সদস্য নিয়ে
ঘ) ৫–৪০ জন সদস্য নিয়ে

৮) ভারতের বিচার ব্যাবস্থার প্রকৃতি হলো ?
ক) খণ্ডিত
খ) অখণ্ড
গ) ধৈত
ঘ) যুক্তরাষ্ট্র

৯) সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি দের নিয়োগ করেন ?
ক) প্রধানমন্ত্রী
খ) রাষ্ট্রপতি
গ) উপরাষ্ট্রপতি
ঘ) স্পিকার

১০) সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি সংখ্যা হলো ?
ক) ২৬ জন
খ) ২৭ জন
গ) ২৮ জন
ঘ) ৩০ জন


১১) সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি দের অবসর গ্রহনের বয়স হলো ?
ক) ৬০ বছর
খ) ৬২ বছর
গ) ৬৫ বছর
ঘ) ৭০ বছর


১২) বিচারপতিদের পদ্চুত করে সরকারের ?
ক) শাসন বিভাগ
খ) আইন বিভাগ
গ) বিচার বিভাগ
ঘ) জনগণ
১৩) ভারতের পার্লামেন্টের  উচ্চকক্ষের নাম হলো ?
ক) সিনেট
খ) লডসভা
গ) রাজ্যসভা
ঘ) বিধান পরিষদ

১৪) লোকসভার সর্বাধিক সদস্য সংখ্যা হলো ?
ক) ৫৫০জন
খ)  ৫৫২ জন
গ) ৫৫৫ জন
ঘ) ৫৬০ জন

১৫) লোকসভার বর্তমান সদস্য সংখ্যা হলো ?
ক) ৫৪৫ জন
খ)  ৫৫০ জন
গ) ৫৫৫ জন
ঘ) ৫৫৩  জন


১৬) রাজ্যসভার সর্বাধিক সদস্য সংখ্যা হলো  ?
ক) ২৪০ জন
খ) ২৪৫ জন
গ) ২৫০ জন
ঘ) ২৫২ জন


১৭) রাজ্যসভার বর্তমান সদস্য সংখ্যা হলো ?
ক) ২৩০ জন
খ) ২৩৫ জন
গ) ২৪০ জন
ঘ) ২৪৫ জন


১৮) লোকসভার সদস্য হওয়ার জন্য পদ প্রাথির নুন্যতম বয়স হতে হবে ?
ক) ১৮ বছর
খ) ২৫ বছর
গ) ২৮ বছর
ঘ) ৩০ বছর


১৯) রাজ্যসভার সদস্য হওয়ার জন্য পদ প্রাথির নুন্যতম বয়স হতে হবে ?
ক) ১৮ বছর
খ) ২০ বছর
গ) ২৫ বছর
ঘ) ৩০বছর

২০) অঙ্গরাজ্যগুলি থেকে লোকসভায় নির্বাচিত হন সর্বাধিক ?
ক) ৫০০ জন
খ) ৫৩০ জন
গ) ৫৫০ জন
ঘ) ৫৫২ জন
২১) NATO গঠিত হয় কার উদ্যোগে ?

ক) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
খ) সোভিয়েত ইউনিয়ন
গ) পোল্যান্ড
ঘ) পর্তুগাল


২২) WARSAW  Pact তৈরি হয় কার উদ্যোগে  ?
ক) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
খ) সোভিয়েত ইউনিয়ন
গ) পোল্যান্ড
ঘ) পর্তুগাল




২৩) কিউবা সংকট দেখা দেয় ?
ক) ১৯৫৫ সাল
খ) ১৯৬০ সাল
গ) ১৯৬২ সাল
ঘ) ১৯৭৫ সাল


২৪) একমেরু বিশ্বের প্রধান শক্তি হলো ?
ক) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
খ)  চিন
গ) ইংল্যান্ড
ঘ) ফ্রান্স


২) নিম্নলিখিত প্রশ্ন গুলির অতি সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও ।


১) ট্রুম্যান নীতি কি ?

২)  SEATO এর পুরো কথা টি কি ?

১) COMECON কি উদ্দেশ্যে গঠিত হয় ?

৩) CTBT কি ?

৪)  SAARC   - এর অষ্ঠাদশ সম্মেলনটি কবে ও কোথায় অনুষ্ঠিত হয় ?

৫)  FISA  - র পুরো কথাটি কি ?

৬) নিরাপত্তা পরিষদের দুটি নিবর্তন মূলক ব্যাবস্থার উল্লেখ করো ?

৭) অছি ব্যাবস্থা কাকে বলে ?

৮) ইউনেস্কো কি ? এর প্রধান উদ্দেশ্য কি ?

৯) সাধারন সভার একটি নির্বাচন মূলক কাজ উল্লেখ করো ?

১০) বর্তমানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO ) র মোট সদস্য সংখ্যা কত ?

১১) বিশ্ব ব্যাংকের  অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য কি ?

১২) জেলা পরিষদের সভায় সভপতিত্ব করেন কে ?

১৩) গ্রাম সংসদ এর প্রধান কাজ কি ?

১৪) বরো কমিটি কিভাবে গঠিত হয় ?

১৫) কোন দেশের বাধাদানের ফলে চিন এখনও সার্ক – এর সদস্য পদ পায়নি ?

১৬) ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে কোন বছর গঙ্গার জলবণ্ঠন  চুক্তি সম্পাদিত হয় ?




রাষ্ট্রবিজ্ঞান প্রশ্ন সেট পার্ট ৭

political-science-questions-set-part-7



    PART - A ( MARKS :- 40 )


১) নিম্নলিখিত প্রশ্ন গুলির উত্তর দাও ।



১) বিশ্বায়নের সংজ্ঞা দাও ? বিশ্বায়নের বিভিন্ন রূপ পর্যালোচনা করো ।

২) মার্কসবাদের মূল সূত্রগুলি আলোচনা করো ?

৩) রাজ্য পালের ক্ষমতা ও কার্যাবলী এবং পদ মর্যাদা আলোচনা করো ।

৪) ভারতীয় পার্লামেন্টের গঠন , ক্ষমতা ও কার্যাবলী আলোচনা করো ।

৫) ভারতের হাইকো্ট ( মহাধর্মাদিকরন )  গঠন  , ক্ষমতা  ও কার্যাবলী আলোচনা করো ।


                              PART - B

১) বিকল্প উত্তর গুলির মধ্যে থেকে সঠিক উত্তর টি বেছে নিয়ে লেখো ।




১) ঠান্ডা লড়াই কথাটি প্রথম প্রয়োগ করেন ?

ক) চার্চিল
খ) বানাড বারুচ
গ) গবাচেভ
 ঘ) ট্রুম্যান ।
২) মিশরের জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের নেতা হলেন ?
ক) নেহেরু
খ) মার্শাল
গ) নাসের
ঘ) সুকর্ন ।

৩) সাম্যবাদ প্রতিরোধ নীতি গ্রহণ করেছিলেন ?
ক) ট্রুম্যান
 খ) চার্চিল
গ) রুজভেলট
ঘ) মার্শাল ।

৪) বর্তমানে সার্কের সদস্য রাষ্ট্রের সংখ্যা হল ?
ক) ৬ টি
 খ) ৭ টি
 গ) ৮ টি
ঘ) ৯ টি ।

৫) " The Limits Of Foreign Policy ".  গ্রন্থের লেখক হলেন ?
ক) হার্টম্যান
খ) ফ্রাঙ্গকেল
গ) মোগেনথাউ
ঘ) মার্শাল ।

৬) পঞ্চশীল নীতি যে বছর স্বাক্ষরিত হয় ?
ক) ১৯৫৫
খ) ১৯৫৬
গ) ১৯৬০
ঘ) ১৯৭৫

৭) আটলান্টিক সনদ স্বাক্ষরিত হয়েছিল ?
ক) ১৯৪১
খ) ১৯৪২
গ) ১৯৪৩
ঘ) ১৯৪৫ ।

৮) নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য সংখ্যা হল ?
ক) ৫
খ) ৮
গ) ১০
ঘ) ১৫ ।
৯) জাতিপুঞ্জের সদস্য নয় এমন একটি রাষ্ট্রের নাম হল ?

ক) ভ্যাটিকান সিটি
খ) নাওরু
 গ) দক্ষিণ সুদান
ঘ) চাদ ।

১০) " Spirit Of Laws  " গ্রন্থের লেখক হলেন ?

ক) বেন্থম
 খ) লড ব্রাউস
 গ) মন্তেষ্কু
 ঘ) ব্লাকেস্টন ।

১১) মার্কিন আইনসভা কংগ্রেসের উচ্চ কক্ষ হল ?
ক) রাজ্যসভা
খ) সিনেট
 গ) লর্ডসভা
ঘ) জাতীয় সভা ।

১২) এক কক্ষ বিশিষ্ট আইনসভার একজন সমর্থক হলেন ?
ক) বেন্থাম
 খ) লর্ড ব্রাউস
 গ) স্টুয়াট মিল
 ঘ) লেকি ।

১৩) ক্ষমতা সতন্ত্রিকরন নীতি গৃহীত হয়েছে ?

ক) ব্রিটেনে
 খ) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে
গ) ভারতে
 ঘ) জাপানে ।

১৪) আইনসভার দ্বিতীয় কক্ষকে ব্যাক্তি স্বাধীনতার প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা " বলেছেন ?

ক) লর্ড অ্যাক্টন
 খ) লর্ড কার্জন
 গ) গেটেল
ঘ) বেন্থাম ।

১৯) আইনসভার জননী বলা হয় ?

ক) মার্কিন কংগ্রেসকে
 খ) ব্রিটিশ পার্লামেন্টকে
গ) ভারতের আইনসভাকে
ঘ) ফরাসী আইনসভা ।
২০) রাজ্যের রাজ্যপাল নিযুক্ত হন ?

ক) ভারতের রাষ্ট্রপতির দ্বারা

খ) ভারতের প্রধামন্ত্রীর দ্বারা
 গ) ভারতের পার্লামেন্টের দ্বারা
ঘ) হাইকোর্টের প্রধান বিচার পতির দ্বারা ।

২১) ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা দায়বদ্ধ থাকে ?

ক) পার্লামেন্টের কাছে
খ) লোকসভার কাছে
গ) রাজ্যসভার কাছে
ঘ) রাষ্ট্রপতির কাছে ।

২২) লোকসভায় নির্ণায়ক ভোট দিতে পারেন ?

ক) একজন M.P.
 খ) রাষ্ট্রপতি
গ) স্পিকার
ঘ) প্রধানমন্ত্রী ।

২৩) রাজ্যপালের  প্রধান পরামর্শদাতা হলেন ?

ক) মুখ্যমন্ত্রী
খ) রাষ্ট্রপতি
 গ) বিধানসভার স্পিকার
ঘ) আইনমন্ত্রী ।

২৪) পঞ্চায়েত সমিতির প্রধান হলেন ?

ক) সভাপতি
 খ) সভাধিপতি
 গ) এস . ডি.ও
 ঘ) বি . ডি.ও ।



২) নিম্নলিখিত প্রশ্ন গুলির অতি সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও ।




১) সপরিষদ মেয়র বলতে কি বোঝ ?

২) গ্রাম সংসদ বলতে কি বোঝ ?

৩) " কিচেন কেবিনেট "  কি ?
৪) ভারতের প্রধানমন্ত্রী কে নিয়োগ করেন ?

৫) আইনবিভাগের দুটি কাজ লেখো ?

৬) " আমলা " কাদের বলা হয় ?

৭) " অর্পিতা ক্ষমতা প্রসূত " আইন কি ?

৮) CIA  - এর পুরো নাম কি ?

৯)  UNO -এর পুরো নাম কি ?

১০) " ভেটো "  কি ?

১১) জাতিপুঞ্জের মহাসচিব কিভাবে নির্বাচিত হন ?

১২) কত সালে " কিউবা  সংকট " দেখা দিয়েছিল ?

১৩) কত সালে " বান্দুং সম্মেলন " অনুষ্ঠিত হয়েছিল ?

১৪) জাতিপুঞ্জের মিলিটারি স্টাফ কমিটির কাজ কি ?

১৫) আন্তজার্তিক আদালতের সদস্য সংখ্যা কত ?

১৬) কতজন সদস্য কে রাষ্ট্রপতি রাজ্যসভায় মনোনীত করতে পারেন ?